কি করে বুঝবেন শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে

0
74

কি করে বুঝবেন শিশুদের যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।  শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হলে কতগুলি শারিরীক, মানসিক এবং আচরণগত পরিবর্তন সংকেত হিসেবে আসতে পারে।  এই সংকেতগুলো দেখলে আমাদের একটু সতর্ক হতে হবে। যে শিশুটির কোন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে কি না তার

শারিরীক লক্ষণ  এর মধ্যে যেমন থাকতে পারেঃ  

১। শরীরের আচ্র দাঁতের দাগ কালশিটে দাগ।

২। খেতে না চাওয়া।

 ৩।হাঁটতে বা বসতে  সমস্যা হওয়া।

৪। প্রায়ই মূত্র নালীর সমস্যা হওয়া।

৫।  যোনিতে বা পায়ুতে সংক্রমণ বা যৌন রোগ দেখা দেওয়া।

 আচরণগত লক্ষণের  মধ্যে থাকতে পারেঃ

১। বড়দের বিশ্বাস করতে না চাওয়া।

২। ঘুম না আসা।দুঃ স্বপ্ন দেখে ঘুম ভেঙ্গে যাওয়া ।

৩। নিজেকে গুটিয়ে নেওয়া ।

৪। বাড়ি থেকে পালানো ।

৫।  মাদক গ্রহণ করা বা নিজের শরীরের ক্ষতি করা ।

৬।  যৌনতার প্রতি হঠাৎ করে বেশি আগ্রহ প্রকাশ করা। কিংবা একেবারেই অপছন্দ করা।

৭। এমন কি  শিশুর মধ্যে আত্মহত্যার প্রবনতাও দেখা দিতে পারে।

৮।  বড় হয়ে অনেক  শিশুরা বিয়েতে আস্থা রাখতে পারেনা।

 লক্ষণ গুলো থাকলেই যে শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার  হয়েছে ব্যাপারটা তা নয়। কিন্তু এগুলো দেখলে সাবধনতার  সাথে পর্যবেক্ষণ করতে হবে।

শিশুটি যদি আক্রান্ত হয়ে যায় তাহলে বাবা মা হিসাবে কি করণীয়ঃ

 ১।  শিশুটি যৌন নির্যাতনের শিকার  হলে যতদ্রুত সম্ভব সরিয়ে নিতে হবে।

২।  প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করাতে হবে।

৩।  প্রযোজ্য ক্ষেত্রে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে ।

৪। তাকে সাহস দিতে হবে।

৫।  তার কোন দোষ নেই এরকম ধারনা দিতে হবে।  কারণ সে সত্যিই একটা শিশু ।

৬। মানসিক ও আচরণগত লক্ষণ প্রকাশ পেলে কোন মনোবিজ্ঞানের কাছে নিয়ে যেতে হবে।

প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই শ্রেয়। তাই আমাদের সবসময় প্রতিরোধের ব্যবস্থা রাখতে হবে। শিশুকে সব সময় নিরাপদ পরিবেশে রাখতে হবে । অবিশ্বস্ত কারো কাছে রাখা যাবে না। মনে রাখবেন নির্যাতনকারী যেকোন নারী পুরুষ হতে পারে।

  শিশুর সাথে সাবলীল  সম্পর্ক তৈরী করুন। শিশুর  সাথে এমনভাবে সম্পর্ক তৈরি করুন যেন শিশুটি আপনাকে যেকোন ধরনের কথা বলতে পারে। বাইরের ভেতর যাই হোক না কেন সে যাতে নির্ভয় আপনার কাছে তার মনের কথা বলতে পারে । এমন একটা আবহ সৃষ্টি করুন ।
  কারণ আপনি শিশুটির  সবচাইতে বেশি আপন ।

 শিশুকে নিজেকে নিরাপদ করতে শেখান।

১।  শরীরের সীমানা চিহ্নিত করতে সেখানে।

২।  সীমানার মধ্যে অপছন্দের কাউকে আসতে দেওয়া যাবেনা তাও বলে দিন।

৩।  শিশুকে  প্রাইভেট পার্ট  সম্পর্কে সেখান ।

৪।  প্রয়োজনে এরকম ছবি ব্যবহার করুন।

good-touch-and-bad-touch কি করে বুঝবেন শিশুদের যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

৫। এই ছবির কোন কোন অংশগুলো প্রাইভেট তা  সুন্দর করে বুঝিয়ে দিন ।

৬।  এবং এর প্রাইভেট পার্টে কোন কোন ব্যক্তি স্পর্শ করতে পারবে তাও শিশুকে বলে দিন।

 যদি কোন অপছন্দনীয় ব্যক্তি তার এই প্রাইভেট পার্টে টার্চ করে তাহলে সে কি করবে? সেটা তাকে শিখিয়ে দিনঃ

১।  যেমন শিশুটি দৌড়ে যেতে পারে ।
২।  চিৎকার করতে পারে।

৩। বাবার কাছে বলতে পারে। এবং

৪।  অন্যান্য যে পরিচিত মানুষ আছে তাদের সামনে চলে যেতে পারে।

 শিশুটি কখনো যদি এরকম একটা অভিযোগ নিয়ে আসে তাহলে অবশ্যই তাকে গুরুত্ব সহকারে দেখতে হবে।  না  হলে  শিশুভবিষ্যতে আর বলার আগ্রহ পাবেনা।  শিশুকে নিরাপদ রাখুন দেশ ও সমাজ এবং পরিবার নিরাপদ  রাখুন ।

এছাড়া   ঘরে  থাকার সময়ে সন্তানকে অনলাইনে নিরাপদ রাখবেন যেভাবেঃ

১। সন্তানের বয়স অনুযায়ী তাঁকে বর্তমান  পরিস্থিতি সম্পর্কে জানান।

২।  ইন্টারনেটে পাওয়া সঠিক এবং ভুল তথ্যের বিষয়ে সচেতন করুন।

৩।  সন্তান দের অনলাইন বন্ধুত্বের বিষয়ে খোঁজ রাখুন।

৪।  সন্তানদের সার্বিক উন্নতি ঠিক রাখতে তাঁকে সাহায্য করুন প্রতিদিনের রুটিন বানাতে।

৫। আস্থার সম্পর্ক  তোরি করতে খোলামেলা ও ইতিবাচক কাজে উৎসাহ দিন।

৬।  সন্তানদের সুরক্ষায় ঠিক লাইনে আনতে বা রাখতে আমাদের সবার নিজের থেকে কিছু দায়িত্ব পালন করা উচিত।

 পুরাতন হলেও আমি কিছু জাতীয় দেনিকের শিরোনাম আপনাদের সামনে  তুলে ধরছি।

নোয়াখালীর সুবর্ণ চরে স্কুল ছাত্রী সংঘবদ্ধ ধর্ষণ।

অনেতিক প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিল মা, প্রতিশোধ নিতে শিশু হানিফাকে খুন করে চাচা।

ধর্ষণের সময় কান্না করায় শিশুকে মেরে ফেলে শিক্ষক।

প ঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে গ্ণ ধর্ষণ।

আয়শার কথা আপনাদের নিশ্চয় মনে আছে। মাত্র দুই ব ছরের মেয়ে তাকে খিচুরি খাওয়ার লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ করে তাকে তিন তালার বারান্দা থেকে ছুরে ফেলে দেয়।  
এগুলো শিরোনাম যেন নিজের সন্তানের  জন্য  না হয় সেই লক্ষেই আজকের এই পোষ্ট টি লেখা। প্রিয় পাঠক আপনাদের সকলের সুস্বাস্থ্য ও নিজের জন্য মঙ্গল কামনা করে “ কি করে বুঝবেন শিশুদের যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে “ শিরোনামে লেখাটি এখানেই শেষ করছি।

নিচের গুরত্ব পুর্ণ লিংকগুলো দেখে আসতে পারেন।

নেশা খুড়ের ফাঁদে পড়ার গল্প করছিলেন এক পরিচিত মানুষ।

শিক্ষাঙ্গনে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হোক।

শিশুদের ‘যৌন শিক্ষার বই’ নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় বিতর্ক

নবজাতক শিশুর বাবার মার ১১ টি করনীয় ।

সন্তান দের যে আমল গুলো শেখাতে হবে