ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন হওয়া দরকার?

ছাত্র ছাত্রীর

 ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন  হওয়া দরকার? পড়াশোনায় মনোযোগ বৃদ্ধি ও পরীক্ষায় ভাল করার উপায় এরকম বিষয়ে শুধু প্রশিক্ষ্ণপ্রাপ্ত শিক্ষকদের জ্ঞান থাকলে হবে না। পরিবার, সমাজ ও প্রত্যেকটি শিক্ষিত অভিভাবক এর এই বিষয়ে জ্ঞান থাকা জরুরি। তাই আমি আজ খুব ভাল লাগা একটা বিষয় নিয়ে আলোচনা করছি। প্রিয় বন্ধুরা এই ধরনের আলোচনা সবার জানা খুব দরকার। আমার আলোচনার বিষয়  ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন হওয়া দরকার?

 শিশুকে শিক্ষাদান এমনভাবে করতে হবে যাতে করে শিশুটি পড়া-শোনায় মনোযোগী হয়। সেজন্য কয়েকটি পদ্ধতি উল্লেখ করছি এখানে- ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন হওয়া দরকার?

১। সহজ ভাষায় বিষয়বস্তুটি আলোচনা করুন। ছাত্র-ছাত্রীদের মন থেকে ভয় কাটান।।

২। সাধারণ উদাহরণের সাহায্যে কঠিন বিষয়গুলি ব্যাখ্যা করুন।

৩। ধৈর্য ও সহানুভূতির দ্বারা পাঠ দান করুন। সামান্য কারণে রাগকে না।

 ৪। বিষয় সম্পর্কে প্রাথমিক জ্ঞান ছাত্রদের যদি না থাকে তাহলে তা দিন।

৫। শিশুদের শিক্ষার ভিত শক্ত না থাকলে তা শক্ত করুন। শিক্ষার ভিত সব বয়সেই শক্ত করা যায়। প্রত্যহ আগে অঙ্ক কষিয়ে অঙ্কের ভিত শক্ত করান।

৬। কঠিন বিষয় জানাতে গিয়ে আগে সহজ প্রক্রিয়াগুলি জানান

৭। শ্রেণিকক্ষে এমন প্রশ্ন করুন যার উত্তর দিতে হলে বিষয় বস্তুটি রীতিমত বুঝতে হয়। তাই বিষয়টি সহজভাবে আগে বুঝিয়ে দিন। তারপর পড়া ধরুন ও লেখান।

 ৮| ছাত্র-ছাত্রীদের মেধাভিত্তিক দলভুক্ত করে পড়ান।

৯। ছাত্রছাত্রীদের নিজস্ব বক্তব্য বলার সুযোগ করে দিন যা শেখালেন পরক্ষণে তা লেখান।

১০। পড়াশোনার মধ্যে কার্কশ্য বা কঠোরতা ত্যাগ করুন।

১১। ছাত্রছাত্রীদের তিরস্কার না করে প্রশংসা করুন। তবে তাদের কাছে ব্যক্তিত্ব হারাবেন না।

১২। আদেশ অপেক্ষা অনুরোধ ও উপদেশ শিশুদের পক্ষে কার্যকরী। তবে অনেকেই আবার শক্তের ভক্ত আর নরমের যম। সে দিকে খেয়াল রেখে শিক্ষা দান করুন।

১৩। ছাত্র-ছাত্রীদের ত্রুটিকে বড় ক রে না দেখে তাদের কৃতিত্বকে বড় করে দেখুন।

১৪। আন্তরিক্তার সাথে প্রাণের রস ঢেলে পড়ান।  ভালবাসার দ্বারা পড়ান। তবে  নিজের ব্যক্তিত্ব হারাবেন না। বলুন, তোমরা আমার স্বর্গ।

ছেলেমেয়েদের পরীক্ষার নম্বর নিয়ে কোন চাপ দেবেন না।

কখনো বলবেন না-দেখ, তন্ময় এবারে ফাস্ট হয়েছে। তুই কেন পারলি না? সে তখন বলবে- রাজু এত ভাল পড়াশোনা করেও ফেল করে গেল। দুজনেইতো  আমার বন্ধু। আমি তবু তো দশ রোল করেছি।

আপনি ছেলেমেয়েকে তার বন্ধুদের সাথে তুলনা না করে বরং বলুন, ভালভাবে পড়, আগামী বছর যেন আরও  ভাল করতে পারিস। সে তখন তাতে উৎসাহ পাবে, রোল এক না হলেও পাঁচে উঠিয়ে আনবে। আর যদি নম্বর নিয়ে এর-তার সঙ্গে তুলনা করেন বা সর্বদা ঘ্যানর ঘ্যানর করেন তাহলে তারা মানসিক আঘাত পাবে।

পরিশেষে পড়াশোনা ছাড়তে ইচ্ছা করবে এবং আপনাদের কাছ  অবহেলা ও অবজ্ঞার ভাব পেয়ে আপনাদের সর্বদা এড়িয়ে চলতে চেষ্টা করবে। তার চেয়ে সর্বদা বোঝান যে ছাত্রানাং অধ্যায়নং তপঃ– অধ্যয়নই ছাত্রদের এক তপস্যা।

ছেলেমেয়েদের জোরে জোরে পড়তে বলুন।

  তাতে তারা পড়া সহজে আয়ত্ব করতে পারবে। তারা মুখ দিয়ে পড়বে আর সেটা কান দিয়ে শুনবে। তাতে শেখাটা সহজ হবে। আবৃত্তি করে জোরে জোরে পড়লে সহজে যেকোন জিনিস বোধগম্য হয়। গানের ছলে পদ্য পড়লে যেমন সহজে মুখস্থ হয়, মনে মনে পড়লে তা হয় না। তাছাড়া জোরে পড়লে জিভের জড়তা দূর হয়, উচ্চারনের ভুল ধরা পড়ে আর অপরের কাছে জোরে বলার সাহসের অভাব হয় না।

প্রতি বাবা মায়ের উচিৎ ছেলেমেয়েদের আবৃত্তি অভিনয়, বক্তৃতা খেলাধূলার প্রতিযো গিতায় অংশগ্রহণ করানো।

তাতে ছেলেমেয়েরা সাহসী হবে, বক্তৃতা শিখবে, স্মার্ট হবে আর অপরিচিতদের সঙ্গে প্রীতির সম্পর্ক দৃঢ় করতে পারবে। সেই সঙ্গে শিখবে মানুষের সাথে মিশতে আর ব্যক্তিত্ব অর্জন করতে পারবে।তাতে মনের জোর বাড়বে ও সামাজিকতা শিখতে পারবে।

ছেলেমেয়েদের ব্যায়ামের সুযোগ দিন।

 ব্যায়ামের মধ্য দিয়ে তাদের দেহও মনের শক্তি বাড়বে। দেহ মন ফ্রেশ হবে। পড়াশোনায় নতুন করে মন দেবে। শরীর ভাল থাকবে।

পড়ার জন্য আলাদা ঘর দিন।

 গোলমালের মধ্যে পড়াশোনা হয় না। ঘর বেশি না থাকলে তারই একপাশে পড়ার জায়গা করে দিন। পড়ার ঘর যাতে আড্ডাখানা না হয় সেদিকে বাবা মা দৃষ্টি রাখুন। পড়ার ঘরে কোন বাজে ছবি টাঙ্গানো চলবে না। কোন ফার্নিচার না থাকাই ভাল। টিভি, রেডিও মোটেই না। গাড়ী চলছে এমন রাস্তার ধারে পড়ার ঘর হলে ছেলেমেয়েদের পড়াশোনায়  মন যোগ আসবে  পড়ার ঘর থেকে পাসের বাড়ির ক্রিয়াকলাপের চিত্র দেখা যাতে না যায় সেদিকেও বাবা মাকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তা না হলে পড়ার ব্যাঘাত |

বাড়ির পরিবেশ ঠিক রাখুন।

আপনার বাড়ির পরিবেশ যেন ভদ্রজনোচিত হয়। সংসারে নিত্য নৈমিত্তিক ঝগড়া গণ্ডগোল হলে ছেলেমেয়েদের পড়া ব্যাহত হবে। বাবা মদ খেয়ে এসে যদি মাতলামি করে বাড়িতে, তাতেও বাড়ির পরিবেশ নষ্ট হয়। সেই সঙ্গে ছেলেমেয়েদের পড়াশোনাও।  ভাববেন, পড়াশোনা সাধনার জিনিস। সর্বদা বাড়িতে টিভি-রেডিও ও ক্যাসেট বাজলে সেই সাধনা সফল হয় না। সাধনা হবে নির্জনে।

সন্তানদের লাইব্রেরীর কার্ড করিয়ে দিন।

লাইব্রেরীর কার্ড করিয়ে দিলে ছেলেমেয়েরা ক্লাসের বই পড়ার সঙ্গে সঙ্গে রেফারেন্স বই পড়ার সুযোগ পাবে। যাদের বিভিন্ন বই কেনার সামর্থ নেই তাদের পক্ষে লাইব্রেরীর সাথে যোগাযোগ খুবই প্রয়োজন!

বছরের প্রথম দিন থেকেই চেলেমেয়েদের নিয়মিত পড়া চালিয়ে যেতে বলুন।

পড়াশোনায় উন্নতি ও পরীক্ষায় ভাল করার উপায় | কোন মতেই এতটুকু গাফিলতি দেওয়াবেন না। আত্মীয় বাড়ি ২ দিনের জন্য গেলে সেখানেও বইপত্র নিয়ে যাবেন। বিশেষ করে ছোট ছোট শিশুদের কথা বলছি।চ

 রুটিন বানিয়ে দিন। প্রাত্যহিক রুটিনে যেন অঙ্ক থাকে।

ছেলেমেয়েদের অঙ্কের মাথা ফ্রেস রাখতে বাল্য থেকেই স্পেশাল কোচিং দিন। তারপর অন্যান্য বিষয়। স্কুলের পড়ার রুটিনতো আছেই। তাছাড়া বাড়িতে বাড়তি পড়ার একটি রুটিন বানিয়ে দিন। রুটিন বানিয়ে না দিলে সব বিশৃঙ্খল হয়ে যাবে। সব বই পড়া হবে না। পড়াশোনার ব্যাপারে রুটিন একটা শৃঙ্খলা। শৃঙ্খলার অভাবে সমস্ত কাজই যেমন বিশৃঙ্খল হয়ে যায় তেমনি রুটিনের অভাবে পড়াশোনা ঠিকমত হয় না। রুটিন করে পড়লে কোন বিষয়েরই পড়াশোনা বাদ যাবে না। তবে অঙ্কের দিকে বেশি লক্ষ্য দিন।

আপনিও ছেলেমেয়েদের সাথে পড়াশোনা করুন।

 ছেলেমেয়েদের পড়াশোনায় আগ্রহী করানোর আর একটি বড় উপায় হচ্ছে আপনারাও তাদেরকে দেখিয়ে দেখিয়ে বই পড়ুন। বাবামায়ের আগ্রহে তারাও আগ্রহী হয়ে উঠবে।

 যে সব কচি শিশুরা পড়তে চায় না তাদেরকে খেলাধুলার মাধ্যমে বা ছবি দেখানোর মাধ্যমে পড়ান। |

যে সব শিশুরা কোনমতেই পড়তে আগ্রহী হচ্ছে না তাদেরকে গল্প বলে বলে পড়ান। ছবির বই কিনে দিন। গল্প শুনতে এবং ছবি দেখতে বড়-ছোট নির্বিশেষে সবাই ভালবাসে। তাই খেলাধূলার মাধ্যামে অথবা ছবি দেখিয়ে বা গল্পের দ্বারা অনাগ্রহী। শিশুদের লেখাপড়া শেখান। | show the video of youtube follow the link

  ইংরেজি কঠিন সাবজেক্ট। ইংরেজি শিখতে হলে গ্রামারের দিকে ছেলেমেয়েদের আগ্রহী করান। গ্রামার ইংরেজি শিক্ষার ভিত। যে গ্রামার না পড়ে সে  ইংরেজি শিখতে পারে না। তাই ছেলেমেয়েদের গ্রামার ও ট্রানশ্লেসন শেখান। show the video of youtube follow the link

 ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন  হওয়া দরকার?  ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন  হওয়া দরকার?   show the video of youtube follow the link

শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন লেখা দেখতে এখানে ক্লিক করুন।
যেকোন প্রশ্ন করতে ও জানাতে এখানে ক্লিক করুন
আমাদের ফেসবুক পেজ দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

video or video for little children show the video of youtube follow the link

1 thought on “ছাত্র ছাত্রীর শিক্ষাদান পদ্ধতি কেমন হওয়া দরকার?”

Comments are closed.