শতকরা ও ল,সা,গু এবং গ,সা,গু নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা।

শতকরা শব্দের অর্থ প্রতি একশতে কত। শতকরা হলাে একটি ভগ্নাংশ যার হর সবসময় ১০০ লব হলাে শতকরায় নির্ণীত সংখ্যাটি।
শতকরার সাংকেতিক চিহ্ন হিসাবে ‘% ব্যবহৃত হয়। টেকনিক : শতকরা ১০ বললে বুঝতে হবে প্রতি ১০০ ভাগের ১০ ভাগ। শতকরা সমাধান পদ্ধতি শতকরা সমস্যাকে ৩ পদ্ধতিতে সমাধান করা যায়।
যথা: ১। ঐকিক নিয়ম ; ২। সমানুপাতিক নিয়মে; ৩। সূত্রের সাহায্যে

শতকরা ব্যবহার।

১। একটি সংখ্যার শতকরার অংশ নির্ণয় করা।
২। একটি সংখ্যা অন্য আর একটি সংখ্যার কত অংশ তা নির্ণয় করা
৩। একটি সংখ্যার শতকরা অংশ দেওয়া থাকলে সংখ্যাটি নির্ণয় করা
৪। শতকরা হ্রাস বা বৃদ্ধি নির্ণয় করা।
৫। সুদ কষা, লাভ-ক্ষতি, জনসংখ্যা হ্রাস-বৃদ্ধির হার নির্ণয় করা। শতকরা প্রকৃতপক্ষে একটি ভগ্নাংশ যার হর ১০০ এবং লব হলাে শতকরায় নির্ণিত সংখ্যাটি। যেমন: ২০ অঙ্কটি শতকরায় প্রকাশ করলে হবে ২০%।।

ল.সা. (L.C.M) ও গ.সা.গু (H.C.F)

– ল.সা.গু (L.C.M)।

প্র : ল.সা.গু কাকে বলে?
উ : দুই বা ততােধিক সংখ্যার সাধারণ গুণিতকের মধ্যে ক্ষুদ্রতম গুণিতককে তাদের লঘিষ্ঠ সাধারণ গুণিতক বা ল.সা.গু. বলা হয়।
প্র : ল.সা.গু নির্ণয়ের পদ্ধতি কয়টি?
উ : সাধারণত তিনটি পদ্ধতিতে ল.সা.গু. নির্ণয় করা হয়ে থাকে।
যথা : পর্যবেক্ষণ পদ্ধতি, উৎপাদক পদ্ধতি, ইউক্লিডীয় পদ্ধতি। এর মধ্যে ইউক্লিডীয় পদ্ধতিই
সবচেয়ে জনপ্রিয়।

গ.সা.গু (ECF);

প্র : গ.সা.গু কাকে বলে?
উ : দুই বা ততােধিক সংখ্যার সবচেয়ে বড় সাধারণ গুণনীয়ককে গরিষ্ঠ সাধারণ
গুণনীয়ক বা গ.সা.গু বলা হয়।
প্র : গুণনীয়ক সংখ্যা কাকে বলে?
উ : যদি কোনাে সংখ্যাকে অপর একটি সংখ্যা দ্বারা নিঃশেষে ভাগ করা যায়, তাহলে
দ্বিতীয়টিকে প্রথমটির গুণনীয়ক বলে।
প্র : গ.সা.গু নির্ণয়ের পদ্ধতি কয়টি?
উ : গ.সা.গু সাধারণত দুটি পদ্ধতিতে নির্ণয় করা হয়ে থাকে।
যথা : ক. উৎপাদক পদ্ধতি, খ. প্রচলিত ভাগ প্রক্রিয়া।
এছাড়া আরো বিভন্নি সুত্র দেখতে যেমন বীজগণিতিয় ভগ্নাংশ,সুচক ও শক্তি, অনুপাত ও সমানুপাত, সমীকরণ, ধারা এবং জ্যামিতি ইত্যাদি ভিজিট করুন আমাদের সাইট।
www.bdpnpc.com
সুপ্রিয় ভিজিটর আপনাদের মতামত আমরা একান্তভাবে কামনা করি।দয়া করে আমার সাইটের ভাল মন্দ দিক তুলে ধরবেন যাতে আমি আমার লেখার বিষয় নিয়ে সচেতন হতে পারি। পরিশেষে আপনাদের সকলের সুস্বাস্থ্য কামনা করে এখানে শেষ করছি।