৭ম ৮ম শ্রেণি বিজ্ঞান এর অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান

৭ম শ্রেণি বিজ্ঞান এর ১ম অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান | সৃজনশীল প্রশ্নঃ প্রশ্ন ১ : পৃথিবীতে অসংখ্য ভাইরাস, ব্যাক্টেরিয়া, ছত্রাক ও এন্টামিবা আছে। এদের সবার গঠন ও বৈশিষ্ট্য এক রকম নয়। এদের মধ্যে প্রকৃতিতে কিছু ভাইরাস ও ব্যাক্টেরিয়া মানুষের উপকার ও অপকার করে থাকে। ৭ম ৮ম শ্রেণি বিজ্ঞান এর অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান ডাউনলোড করতে নিচে ডাউনলোড লিংক দেওয়া আছে।

§ ক) এমিবিক আমাশয় কোন অনুজীবের কারণে হয়?

§ খ) ব্যক্টেরিয়াকে আদি কোষী বলা হয় কেন?

§ গ) উদ্দীপকের প্রথম অণুজীবটি উদ্ভিদের কোন কোন রােগ সৃষ্টি করে তা ব্যাখ্যা কর।

§ ঘ) উদ্দীপকের দ্বিতীয় অণুজীবটির অর্থনৈতিক গুরুত্ব বিশ্লেষণ কর।

 সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন :

§ ১। ছত্রাককে মৃতজীবী বলা হয় কেন?

  ২। ভাইরাসকে অকোষীয় জীব বলা হয় কেন?

উত্তরঃ ক.  এন্টামিবা অনুজীবের কারণে এমিবিক আমাশয় হয়।

উত্তরঃ খ.  নিউক্লিয়াসের গঠনের ভিত্তিতে কোষ দু’প্রকার। তার মধ্যে আদিকোষ অন্যতম, যার নিউক্লিয়াস সগঠিত নয়। এদের নিউক্লিউপ্লাজম, নিউক্লিওলাস, নিউক্লিয়ার রন্ধ্র নেই। ব্যাকটেরিয়ার ক্ষেত্রেও একই।ব্যাকটেরিয়া কোষে কোনো সুগঠিত নিউক্লিয়াস থাকে না। এ কোষের নিউক্লিয়াস কোনো পর্দা দিয়ে আবৃত থাকে না, তাই নিউক্লিওবস্তু সাইটোপ্লাজমে ছড়ানো থাকে। এর কোষে মাইটোকন্ড্রিয়া, প্লাস্টিড, এন্ডোপ্লাজমিক রেটিকুলাম ইত্যাদি অঙ্গাণু থাকে না তবে রাইবোজোম থাকে। ব্যাকটেরিয়ার ক্রোমোজোমে কেবল DNA থাকে। এ সকল কোষীয় বৈশিষ্ট্যসমূহ আদিকোষী জীবের কোষীয় বৈশিষ্ট্যের অনুরূপ বলে ব্যাকটেরিয়াকে আদিকোষী জীব বলা হয়।

উত্তরঃ গ.  উদ্দীপকের প্রথম অণুজীবটি হলো ভাইরাস। ভাইরাস (Virus) হলো একপ্রকার অতিক্ষুদ্র জৈব কণা বা অণুজীব। এরা অতি-আণুবীক্ষণিক এবং অকোষীয়। ভাইরাস বলতে এক প্রকার অতি ক্ষুদ্র আণুবীক্ষণিক অকোষীয় রোগ সৃষ্টিকারী বস্তুকে বোঝায়। উদ্ভিদ ও প্রাণীর বহু রোগ সৃষ্টির কারণ হল ভাইরাস। উদ্ভিদ ভাইরাসগুলি উদ্ভিদকে প্রভাবিত করে এমন ভাইরাস। অন্য সকল ভাইরাসগুলির মত, উদ্ভিদ ভাইরাসগুলি বাধ্যতামূলক অন্তঃকোণীয় পরজীবী যা একটি হোস্ট ছাড়া প্রতিলিপি করা আণবিক যন্ত্রের নেই। উদ্ভিদ ভাইরাস উচ্চ গাছপালা থেকে ক্ষতিকারক হয়। ভাইরাস উদ্ভিদের যে সক্ল রোগ সৃষ্টি করেঃ

১। ধানের টুংগ্রো রোগ ২। তামাকের মোজাইক ভাইরাস ৩। লিফরোল(পাতা কুচকানো রোগ) ইত্যাদি।

উত্তরঃ ঘ. দ্বিতীয় অণুজীবটি ব্যাক্টেরিয়া। ব্যাকটেরিয়া হলো এক প্রকারের আদি নিউক্লিয়াসযুক্ত, অসবুজ, এককোষী অণুজীব, যার নিউক্লিয়াসটি সুগঠিত নয়। অণুবীক্ষণযন্ত্র ছাড়া এদের দেখা যায় না। জীবজগতের এগুলােই সরলতম ও ক্ষুদ্রতম জীব বলে পরিচিত। ব্যাকটেরিয়া আমাদের বিভিন্নভাবে উপকার করে থাকে। ব্যাকটেরিয়া হতে বিভিন্ন রোগের অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ প্রস্তুত করা হয়। এছাড়াও ব্যাকটেরিয়া হতে কলেরা, টাইফয়েড, যক্ষ্মা, ডি.পি.টি ইত্যাদি রোগের প্রতিষেধক টিকা তৈরি করা হয়। উদ্ভিদ ও প্রাণীর মৃতদেহ, বর্জ্য পদার্থ ইত্যাদি পচনের মাধ্যমে জৈব পদার্থকে দ্রুত রূপান্তরিত করে পয়ঃনিষ্কাশনে ব্যাকটেরিয়া ব্যবহার করা হয়। চামড়া হতে লোম ছড়ানো ও পাট পচিয়ে আঁশ ছাড়ানোর কাজেও ব্যাকটেরিয়া ভূমিকা পালন করে। দুধ হতে মাখন, দই, পনির প্রভৃতি প্রস্তুতে ব্যাকটেরিয়ার কার্যকারিতা প্রয়োজন। আমাদের অন্তে E.coli ও অন্যান্য ব্যাকটেরিয়া বিভিন্ন ভিটামিন প্রস্তুত ও সরবরাহ করে। মাটির উর্বরতা বৃদ্ধিতে ব্যাকটেরিয়ার অবদান অনেক। মাটির জৈব পদার্থ সঞ্চয়ে ব্যাকটেরিয়ার প্রত্যক্ষ ভূমিকা রয়েছে। ব্যাকটেরিয়া মাটির উপাদান হিসেবেও কাজ করে। কিছু ব্যাকটেরিয়া মাটিতে নাইট্রোজেন সংবন্ধন করে উর্বরতা বৃদ্ধি করে। সমুদ্রের তেল অপসারণে, পতঙ্গনাশক হিসেবেও ব্যাকটেরিয়ার ব্যবহার উল্লেখযোগ্য। ধান ও গমের উৎপাদন বাড়াতেও ব্যাকটেরিয়া প্রয়োগে সুফল পাওয়া গেছে। এছাড়াও জিন প্রকৌশলেও ব্যাকটেরিয়ার গুরুত্ব অপরিসীম।

 সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন : উত্তর

 § ১। ছত্রাককে মৃতজীবী বলা হয় কেন?

§ ২। ভাইরাসকে অকোষীয় জীব বলা হয় কেন? উত্তরঃ ১ ছত্রাক সমাঙ্গদেহী অসবুজ উদ্ভিদ। এদের দেহে ক্লোরোফিল থাকে না। ফলে এরা সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়ায় খাদ্য তৈরি করতে পারে না। খাদ্যের জন্য এরা মৃত জীবদেহের ওপর নির্ভর করে। এছাড়া এরা মৃত জীবদেহ বা জৈব পদার্থে পূর্ণ এমন মাটিতে জন্মায়। এ কারণে ছাত্রাককে মৃতজীবী বলা হয়। উত্তরঃ২ ভাইরাস দেহে কোষপ্রাচীর, প্লাজমালেমা, সুসংগঠিত নিউক্লিয়াস, সাইটোপ্লাজম ইত্যাদি কিছুই নেই। তাই ভাইরাসকে অকোষীয় জীব বলা হয়।

নিচের গুরত্ব পুর্ণ লিংকগুলো দেখে আসতে পারেন।

৭ম শ্রেণি বিজ্ঞান এর ১ম অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান |

জ্ঞানশক্তি অর্জনই শিক্ষার আসল উদ্দেশ্য হওয়া উচিত।

পড়াশোনা, চাকরি, সংসার পাশাপাশি ফিলান্সিং।

if you want to listen audio this text you follow this link

৭ম শ্রেণি বিজ্ঞান এর ১ম অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান উত্তর প্ত্র ডাউনলোড ক রতে এখানে ক্লিক করুন।

৮ম শ্রেণি বিজ্ঞান এর অ্যাসাইনমেন্ট এর সমাধান ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।

Spread the love