student-পরিক্ষায় খাতায় আমরা কি ধরনের ভুল করে থাকি।

student – সকল ধরেনের পরিক্ষায় খাতায় আমরা কি ধরনের ভুল করে থাকি। Dear visitor আজকে আমি একটি গুরত্বপুর্ন একটি পোষ্ট আপনাদের জন্য উপহার দিবো।post টি সমন্ধে ছাত্র, অভিভাবক, শিক্ষক এক কথায় সকল শিক্ষিত মানুষের জানা দরকার।পোষ্টটি হল কিভাবে পরিক্ষায় খাতায় লিখতে হয়। ছাত্ররা বা পরিক্ষার্থীরা কি ধরনের ভুল করে আসে পরিক্ষায় খাতায় তার উপর একটি ছোট্র সমাধান। আশা করি ভাল লাগবে। (student)

অনেকে পুরো উত্তরপত্র ভরে লিখে এবং অতিরিক্ত কাগজ নিয়ে সেটাও ভরে লিখে আসে। তাতে ভাল ফলাফল পাওয়া যায় না।ইচ্ছা মত গান লিখে আসে। ভারতের কোন এক স্কুলে এক পরিক্ষার্থী পরিক্ষা শেষে পরিক্ষার খাতার সঙ্গে নিদিষ্ট পরিমান টাকাসহ মোবাইল নাম্বার দিয়ে জমা দেয়।তবে সে-রকম শিক্ষকের নিকট খাতাটি যায়নি।তাই পরবর্তিতে সেটা খবরের কাগজে বের হয়।বিষয়টি পুরোপুরি ছাত্রদের দোষ নয়। কারণ বিদ্যালয়ে ছাত্রদের পরিক্ষা উপযোগি করে তোলা হয় না।ভারতের বিশেষ এলাকায় এটা বাস্তব চিত্র।বাংলাদেশ এ প্রভাব থেকে মুক্ত নয়। এর বহু প্রমাণ আপনার জানেন।যাহোক আমি মুল আলোচনায় আসি।

ধরনের সমস্যা থেকে বাঁচতে নিচের পদ্ধতি গুলো অনুস্বরণ করতে পারি

১. পরীক্ষার উত্তরপত্রে মোৰাইল নম্বর লেখা যাবে না।

২.অপ্রাসঙ্গিক উত্তর দেওয়া যাবে না।

৩. পাশ করে দেওয়ার অনুরোধ করা যাবে না ।

৪. লেখাগুলো পড়ার উপযোগী বা স্পষ্ট করে লিখতে হবে।

 ৫.ধারাবাহিকভাবে উত্তর লিখতে হবে। যেমন- ক, , , ,

৬. কোন উত্তরের নম্বর না দিয়ে উত্তর লেখা শুরু করা যাবে না।

৭. কোন কবিতা, সোনার বাংলা বা গানের লাইন লেখা যাবে না।

৮.উত্তরপত্র ভরানোর জন্য একই লাইন বার বার লেখা যাবে না।

৯. ছোট বাচ্চাদের মত বড় আকারে বেশি জায়গা জুড়ে লেখা যাবে না।

 ১০. উত্তরপত্রের উপরে ও বাম পার্শ্বে এক থেকে দেড় ইঞ্চি মার্জিন রাখতে হবে।

 ১১. সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তরে উদ্দীপকের কোন অংশ হুবহু কপি করে লেখা যাবে না।

১২. নিজেকে ইয়াতিম, অসহায় সন্তানের পরিচয় দিয়ে পাশ করার অনুরোধ করা যাবে না।

 ১৩.পুরো উত্তরপত্রে একই রকম লেখা লিখতে হবে; মানে হাতের লেখার অমিল করা যাবে না।

 ১৪.এক প্রশ্নের উত্তর লেখা শেষ হলে, কমপক্ষে ১ ইঞ্চি জায়গা ফাঁকা রেখে পরবর্তী উত্তর শুরু করা

১৫. কোন পরীক্ষায় (গাণিতিক বিষয় ছাড়া) যদি প্রশ্ন কমন নাও আসে,    তবুও মনের আইডিয়াতে লিখে সকল প্রশ্নের উত্তর দেওয়া।

 ১৬ লেখা শেষ হলে, পুরো উত্তরপত্র চেক করে দেখতে হবে।

বিশেষ করে উত্তরের নম্বরগুলো ঠিক আছে কিনা, সেটা দেখা বেশি জরুরি।

(student) উপরের এই লেখা গুলো আসলে খুব চমৎকার। বিষয়গুলো সর্ম্পকে ছাত্রদের প্রতি সপ্তাহে এমন কি প্রতিটি ক্লাসে একটি করে হলেও ধারণা দেওয়া ভাল। এজন্য শুধু শিক্ষকদের দোষ দিলে হবে না।আমাদের কিছু দায়িত্ব থেকে যায়। আর সে অনুপেরণা থেকেই এই লেখা। আমি শিক্ষকদের পাশাপাশি পিতা-মাতা, অভিভাবক, বড় ভাইবোন ও শিক্ষিত প্রতিবেশির প্রতি অনুরোধ করবো আপনার উপরের বিষয়গুলো সমন্ধে ছাত্রদের অবহিত করেন। আমি বলছি না যে আপনারা জানেন না। আমি জানি যে এই বিষয়গুলো শুধু শিক্ষকরাই শিখাবেন। এটা আমাদের ভুল ধারণা। এই নিয়মগুলো শিখানোর দায়িত্ব আমাদের সমাজের সকলের।

পরিক্ষায় কিভাবে লিখতে হয় এইভাবে কোনদিনই হাতে কলমে শিখানো হয় না। যদি একটি ছাত্রকে জীবনের শুরু থেকে এভাবে শিখানো হয়, তাহলে একজন ছাত্র যত সুন্দর করে খাতায় লিখবে আবার পরিক্ষক তত মনোযোগ সহকারে খাতটি মুল্যায়ন করবে।মাঝখানে ছাত্রগুলো আনন্দসহকারে তাদের লেখা পড়া চালিয়ে যাবে।

ধন্যবাদ সবাইকে। মতামত আশা করছি আপনাদের নিকট থেকে।

এরকম শিক্ষামুলক আরো পোষ্ট দেখতে আমাদের সাইট টি ভিজিট করুন।homepage

যেকোন বিষয়ে জানতে ও জানাতে প্রশ্ন এবং উত্তর লিখুন আমাদের সাইটে।লিংকটি হলো এখানে ক্লিক করেন।   Facebook page for this link

One thought on “student-পরিক্ষায় খাতায় আমরা কি ধরনের ভুল করে থাকি।

Comments are closed.